শুভ জন্মদিন মহারাজ

২০০৩ -এর ব্রিসবেন – অস্ট্রেলিয়া প্রথম ইনিংস-এ করেছে ৩২৩। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ভারত ৬২ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে কোণঠাসা। রাহুল এক রানে ও শচীন শূন্য রানে আউট হয়ে প্যাভিলিয়নে। মেঘলা পরিবেশ ও সবুজ উইকেট-এর পূর্ণ সদ্ব্যবহার করছে জিলেসপি, নাথান ব্র্যাকেন, বিচেল-রা। এই সময়ে ব্যাট হাতে নামলেন বেহালার ছেলেটা। কমেন্ট্রি বক্স-এ ফিসফাস শুরু যে এই পরিবেশে সৌরভ কিছুই করতে পারবে না, ভারত-কে এখন ফলো-অন বাঁচানোর জন্য ব্যাট করতে হবে ইত্যাদি। প্রতিবারের মতো মহারাজের ব্যাট কথা বলতে লাগলো। এক একটা কভার ড্রাইভ যেন সপাটে চড় এক একজন সমালোচকের গালে। শেষে যখন আউট হয়ে ফিরছেন তখন স্কোরকার্ড দেখাচ্ছে ভারত ৩২৯-৬। এই সেঞ্চুরি পুরো সিরিজে ভারতের সুর বেঁধে দিয়েছিলো, জানিয়ে দিয়েছিলো অস্ট্রেলিয়ানদের – খেলা হবে। হয়েছিল খেলা, জমে গিয়েছিলো সিরিজ। স্টিভ বাকনর আর একটু সততার পরিচয় দিলে হয়তো আমরা সিরিজটা জিতেই ফিরতাম। এরকম আরো অনেক ঘটনা সৌরভ গাঙ্গুলির ক্রিকেটীয় জীবন থেকে দেওয়া যায়, যা আমাদের সসম্মানে ফিরে আসতে শেখায়, শেখায় হারার আগে কখনো হার না মানতে। বিপক্ষের চোখে চোখ রেখে কিভাবে লড়াই করতে হয়, সব বঞ্চনার প্রতিশোধ কিভাবে নিতে হয়, তার জ্বলন্ত উদাহরণ সৌরভ গাঙ্গুলি-র ক্রিকেট জীবন। ধন্যবাদ মহারাজ আমাদের অনুপ্রাণিত করার জন্য বারবার। জন্মদিনের অনেক শুভেচ্ছা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.