দিনরাত্রি

বীথি চট্টোপাধ্যায়

হু হু করে কাটে দিনরাত
যেন ট্রেনের জানলা দিয়ে ;
পেরিয়ে যাচ্ছে দিগন্তসীমা
ধানক্ষেত হাতে নিয়ে।
#
নিশুতি রাতটি ঝরে পড়ে
ঘোর বৃষ্টির মত মুখে
শুনসান পাড়া, ছায়ামূর্তিরা
হাঁটে শহরের বুকে।

পড়ন্ত রোদ মুছে দেয় দিন
পাখির ডানায় উড়ে,
কল্লোলিনীর কলরব যেন
বেড়াতে গিয়েছে দূরে।

কুসুমে কুসুমে ফাঁকা রাস্তায়
চরণচিহ্ন রেখে, 
আর কতদূরে নিয়ে যাবে তুমি
আমাকে আমার থেকে?

কোনদিকে যাবো কিছুই জানিনা
কূল থেকে ঘোর জলে
নদীর ওপর জীবনের রং 
কত খেলা বয়ে চলে।

ফাঁকা রাস্তায় ফুল ঝরে পড়ে
ধুলোবালি খড়কুটো; 
তালা পড়ে গেছে দোকানে দোকানে
আলগা হাতের মুঠো।

দিন শেষ হয়ে যে সিন্ধুপারে
রোজ রাত এসে মেশে, 
ছায়া মেখে কারা মিলিয়ে যাচ্ছে
না ফেরার দূর দেশে।

ফাঁকা রাস্তায় কুয়াশার স্তর
শহরের ধুলো মেখে,
আর কতদূরে নিয়ে যাবে তুমি
আমাকে আমার থেকে?

Leave a Reply

Your email address will not be published.