ছুঁয়ে থাকি

দেবাশিস চন্দ

মাঠি ছুঁয়ে থাকতে চাই
থাকতে চাই গাছেদের জড়িয়ে
চাঁদের আরোগ্যসাম্পানে ভেসে আসা
জোৎস্নাগন্ধ মেখে বসে থাকি শব্দউপকূলে
অন্ধকারের সন্ত্রাসচৌকাঠ পেরিয়ে আসতে গেলে
খাড়া করি প্রাচীর, রোদ হাওয়ার পৃথিবীতে এসে দাঁড়াই
#  
দূরত্বশাসনের উদ্ধত তর্জনী এক ফুঁয়ে
উড়িয়ে বলি দূরে নয়, কাছে কাছে স্পর্শে
স্পর্শে জীবনের বৃন্দগান, ভার্চুয়াল সৈকতের
সাজানো কোলাহল দূরে সরিয়ে, সমাজমাধ্যমে
আত্মগর্বীদের অলস আস্ফালনে হাসি, দেখি না তো
কোনো দিবাস্বপ্ন, জেগে থাকি, বিদ্যুৎঝলকে সোঁদামাটির
ভৈরবীতে নতুন ভোর, আগামীর রামধনুতে ফিরুক আলো

থাকতে চাই যেভাবে ছিলাম স্পর্শ গন্ধ বন্ধুত্বে
ভালবাসায়, নৈঋত কোণের ঝড়ে উল্টে যাওয়া ঘর
নতুন করে সাজাই, মধ্যরাতের পাগলা ঘণ্টি ঘুম কেড়ে
নিলে ভয়কে তুড়ি মেরে সামাজিক দূরত্বের অষ্টপ্রহর বেজে
যাওয়া বিষাদহুকুম হঠিয়ে এসো পাশে বসি, ভরসার বন্ধনে ফিরে
পাই হারানো ঠিকানা, অন্তরিনের শেকল ছিঁড়ে স্নান হেমন্তের শিশিরে

Leave a Reply

Your email address will not be published.